1. [email protected] : md Hasanuzzaman khan : The Bengali Online Newspaper in Tangail News Tangail
  2. [email protected] : Aminul islam kobi : Aminul islam kobi
  3. [email protected] : Anowar pasha : Anowar pasha
  4. [email protected] : ArifulIslam : Ariful Islam
  5. [email protected] : arnob alamin : arnob alamin
  6. [email protected] : dm.shamimsumon : dm shamim sumon
  7. [email protected] : Lithy : Khorshida Parvin Lithy
  8. [email protected] : HM Maruf Ahmmed : HM Maruf Ahmmed
  9. [email protected] : MD. MONIR HASAN : MD. MONIR HASAN
  10. [email protected] : MuslimUddin Ahmed : MuslimUddin Ahmed
  11. [email protected] : Sahadev Sutradhar Sayon : Sahadev Sutradhar Sayon
  12. [email protected] : sheful : Habibullah Sheful
দেলদুয়ারে ২৭টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে তিনশতাধিক বাল্যবিবাহ! - Tangail News
মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১১:১৫ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ সংবাদঃ-
টিভিতে আজকে খেলা লিভার সুরক্ষিত রাখতে খান ৭ খাবার খুলে দেয়া হলো মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হল কালিহাতীতে যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার স্বজনদের অভিযোগ মানসিক নির্যাতনের ফল বা হত্যা কালিহাতীর দশটি ইউনিয়নে নৌকার মাঝি হলেন যারা বার্সাকে আবারও হারিয়ে শীর্ষে রিয়াল ভারতকে ‘১০’ উইকেটে হারিয়ে পাকিস্তানের ইতিহাস রচনা মার্সেইয়ের মাঠে ড্রয়ের স্বস্তি তারকাসমৃদ্ধ পিএসজির সালাহর হ্যাটট্রিকে ইউনাইটেডকে উড়িয়ে দিল লিভারপুল গোপালপুরে হাতেম আলী তালুকদারের ২৪ তম মৃত্যুবার্ষিকীতে স্মরণ সভা ধনবাড়ীর যদুনাথপুরে নির্বাচনী ঝড় তুলেছেন টিটু বাসাইলে ইউপি নির্বাচনকে সামনে রেখে আ.লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী শাহীন তালুকদারের শোডাউন টিভিতে আজকে খেলা বোলারদের দিনে কষ্টার্জিত জয়ে বিশ্বকাপ শুরু অস্ট্রেলিয়ার ধনবাড়ীতে সড়ক দুর্ঘটনায় ব্যবসায়ী নিহত

দেলদুয়ারে ২৭টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে তিনশতাধিক বাল্যবিবাহ!

দেলদুয়ার প্রতিনিধি(টাঙ্গাইল)
  • প্রকাশ : শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ২৫৩ ভিউ
Spread the love

“করোনা মহামারির চলতি দেড় বছরে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকাকালীন সময়ে টাঙ্গাইলের দেলদুয়ারে বাল্যবিবাহের শিকার হয়েছে প্রাই তিন শতাধিক স্কুলে পড়ুয়া ছাত্রী।

এই অপ্রাপ্ত বয়স্কা স্কুলে পড়ুয়া কিশোরী (ছাত্রীরা) বধূ সাজে স্বামী সংসার ধর্মের শেকলে বাঁধা পরেছে তারা, আজ সৃষ্টিকর্তার অনুকম্পাই তাদের ভরসা । উপজেলার ২৭টি মাধ্যমিক গার্লস/ গার্লস-ভয়েজ বিদ্যালয়ের ১২টির মধ্যে প্রায় আড়াইশতাধিক ছাত্রীর বাল্যবিবাহের খবর জানা গেছে। এছাড়াও ৯টি দাখিল মাদ্রাসার একটিতেই বাল্যবিবাহের শিকার হয়েছে ১৬জন ছাত্রী।
সরেজমিনে উপজেলার বিদ্যালয়গুলোতে বাল্য বিবাহের যে খবর পাওয়া গেছে তা খুবই উদ্বেগজনক বলেছেন শিক্ষা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গ ও শিক্ষকবৃন্দ।
এ বিষয়ে শাফিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সৈয়দা তাহমিনা বেগম বলেন, এই প্রতিষ্ঠানে শুধু এসএসসি পরীক্ষার্থীদের মধ্য হতেই ১৪জনের বিয়ের বিষয়ে প্রাথমিক ভাবে আমরা নিশ্চিত হয়েছি। অন্যান্য শ্রেণীর সঠিক তথ্যগুলো এখনও নিশ্চিত করতে পারিনি, তবে তথ্য সংগ্রহের চেষ্টা চলছে।
দীর্ঘদিন পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চালু হলেও বন্যা জনিত কারণে ক্লাসে উপস্থিতি আশানুরূপ নয়। শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি বাড়লে বাল্যবিবাহের আরও তথ্য জানা যতে পারে।
নলশোধা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মির্জা আখলিমা বেগম জানান, এ পর্যন্ত আমরা ২৯জন ছাত্রীর বাল্যবিবাহের তথ্য পেয়েছি। সব শ্রেণীর তথ্য পেলে সংখ্যাটি বাড়তে পারে।
তিনি আরও জানান, অভিভাবকদের অসচেতনতাই এই বাল্যবিবাহের কারণ।
বেলায়েত হোসেন বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আহসান হাবীব জানান, তার প্রতিষ্ঠানের ৪১জন ছাত্রী বাল্যবিবাহের শিকার।
এমএ করিম বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. মোসলেম উদ্দিন বলেন, ১০ম শ্রেণির (নতুন)
১২৮ ছাত্রীর মধ্যে ৮জনের বাল্যবিবাহের সংবাদ পেয়েছি। অন্যান্য শ্রেণীর বাল্যবিবাহের তথ্য নিরূপণের চেষ্টা চলছে।
ডা. এফআর পাইলট ইনস্টিটিউটের প্রধান শিক্ষক নিলুফার ইয়াসমিন জানান, ২৩জন শিক্ষার্থীর বাল্যবিবাহের তথ্য পেয়েছি।
এছাড়াও এলাসিন নাছিমুননেছা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৩০জন, সুফিয়া কাশেম উচ্চ বিদ্যালয়ের ১৫জন, লাউহাটী এমএএম উচ্চ বিদ্যালয়ের ৩১জন, ড. আলীম আল রাজী উচ্চ বিদ্যালয়ের ২৭জন, মেজর জেনারেল মাহমুদুল হাসান উচ্চ বিদ্যালয়ের (পুটিয়াজানী) ২৩জন, দেওজান সমাজ কল্যাণ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬জন, সোনার বাংলা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬জন ও পড়াইখালী বালিকা দাখিল মাদ্রাসার ১৬জন শিক্ষার্থীর বাল্যবিবাহের তথ্য জানা গেছে।
দেলদুয়ার উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. মুজিবুল আহসান বলেন, উপজেলার ২৭টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মধ্যে ১২টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও ৯টি মাদ্রাসার দেয়া তথ্যমতে, দেখা গেছে ১২টি বিদ্যালয়ের ২৫৩ ও ১টি মাদ্রাসার ১৬ ছাত্রী বাল্যবিয়ের শিকার হয়েছে।
তবে সব প্রতিষ্ঠানের সঠিক তথ্য পেলে বাল্যবিবাহের সংখ্যা বেড়ে যেতে পারে এবং করোনাকালে সামাজিক কুসংস্কার ও অভিভাবকদের অসচেতনতাই বাল্যবিবাহের প্রধান কারণ বলে জানান তিনি।
এম.এইচ/ডি

নিউজটি সোস্যালমিডিয়াতে শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ
© All rights reserved © 2021
Theme Customized BY LatestNews
error: Content is protected !!