1. [email protected] : md Hasanuzzaman khan : The Bengali Online Newspaper in Tangail News Tangail
  2. [email protected] : Aminul islam kobi : Aminul islam kobi
  3. [email protected] : Anowar pasha : Anowar pasha
  4. [email protected] : ArifulIslam : Ariful Islam
  5. [email protected] : arnob alamin : arnob alamin
  6. [email protected] : dm.shamimsumon : dm shamim sumon
  7. [email protected] : Lithy : Khorshida Parvin Lithy
  8. [email protected] : HM Maruf Ahmmed : HM Maruf Ahmmed
  9. [email protected] : MD. MONIR HASAN : MD. MONIR HASAN
  10. [email protected] : MuslimUddin Ahmed : MuslimUddin Ahmed
  11. [email protected] : Sahadev Sutradhar Sayon : Sahadev Sutradhar Sayon
  12. [email protected] : sheful : Habibullah Sheful
লৌহজং নদী - আখতার বানু শেফালী - Tangail News
শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:৪৮ অপরাহ্ন
সর্বশেষ সংবাদঃ-
সখিপুরে ৪টি সড়কের কাজ উদ্বোধন করলেন এমপি জোয়াহের টাঙ্গাইলে বাস-ট্রাক-কাভার্ডভ্যানের সংঘ‌র্ষে নিহত ৩ টিভিতে আজকে খেলা আইয়ার ও ত্রিপাঠি ঝড়ে উড়ে গেল মুম্বাই পেটব্যথা কমানোর প্রাকৃতিক উপায় কালিহাতী উপজেলা প্রকৌশল শ্রমিক ইউনিয়ন সভাপতি মাে. আব্দুল জলিল সাধারণ সম্পাদক হাসমত আলী মধুপুরে স্কুলছাত্রীকে শ্লীলতাহানী, বিচার দাবিতে মানববন্ধন টিভিতে আজকে খেলা গোপালপুরে বালির মোকাম উচ্ছেদ ও ৩জনকে কারাদন্ড কালিহাতীতে অজ্ঞাত ট্রাকের চাপায় প্রাণ হারালেন অজ্ঞাত বৃদ্ধ পিএসজির নাটকীয় জয়ে নায়ক হাকিমি গোপালপুর পৌরকর নীতিনির্ধারণে পৌরবাসীর মতবিনিময় সভা কাদের সিদ্দিকীর রোগমুক্তির জন্য বাসাইলে দোয়া মাহফিল টিভিতে আজকে খেলা ৫০ বছর ধরে প্রতিমা তৈরি করেন ভারত পাল

লৌহজং নদী – আখতার বানু শেফালী

কবিতা
  • প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৬ জুলাই, ২০২০
  • ৫৭৩ ভিউ
Spread the love

লৌহজং নদী

আখতার বানু শেফালী

 

টাঙ্গাইল শহরের পাশে ছিলো এক নদী
কলকল ছলছল করে বয়ে যেতো নিরবধি।
দুই পাড়ে ছিলো তার ছোট ছোট বাড়ী
গাছের ছায়া, মায়া দিয়ে রেখে ছিলো ভারী।
নদীর পাড়ে বসে রাখাল বাজাতো বাঁশী
বাঁশীর সুর শুনে কারো মন হতো উদাসী।
ছোট ছোট নাও যেতো ভাটিয়ালী গেয়ে,
তীর বেগে ছিপ নাও যেতো বৈঠা বেয়ে।
ছোট বড় মাছ সেথা ধরা পড়তো জালে,
নদীর পানি নিয়ে কিষাণ জমিতে ঢেলে।
নদীর পাড়ে ফসল ফলাতো যতন করে
সোনার ফসলে নদীর পাড় যেতো ভরে।
নদীর পাড়ে চড়ে বেড়াতো গরু ছাগল কতো
চোখে যেনো ভাসে সব ছবির মতো।
ছেলে মেয়েরা দল বেধে কাটতো সাঁতার
বড়োরা কতো কাজে ব্যস্ত নদীতে তাহার।
যমুনার শাখা নদী নাম তার লৌহজং,
ভরা বর্ষায় দেখা যেতো তার উত্তাল ঢং।
বড়,বড় মহাজনী,বজরা,পানসীর ভিড়,
কুলে কতো হৈ চৈ ব্যবসা ব্যস্ততা অধীর।
এখন সেই নদীটির কোনো চিন্হও নেই
গেলে নদীটিরে না পেয়ে হারাই যে খেই।
স্রোত হারা গতি হারা নদীটি নর্দমা যেনো
নদীটিতে আবর্জনা ভরা প্রান নাই কোনো
শুনছি নদীটি নাকি জনগন করবে উদ্ধার
নদীটি পাবে ফিরে পুনরায় জীবন তাহার।
আবার জমবে মেলা নৌকা বাওয়ার খেলা
নদীটি হবে আবার প্রান চঞ্চল ভাবি এই বেলা।
দুইকুল আবার উঠবে জেগে হবে মাতোয়ারা
সম্পদ আর সৌন্দর্যে ভরবে নদীটির ধারা।
এই ভাবে নদীটি বেঁচে থাকে যেনো যুগ যুগ
সারা বছর পানির কলতানে ভরা থাকে বুক।

নিউজটি সোস্যালমিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ
© All rights reserved © 2021
Theme Customized BY LatestNews
error: Content is protected !!