1. admin@amadertangail24.com : md Hasanuzzaman khan : The Bengali Online Newspaper in Tangail News Tangail
  2. aminulislamkobi95@gmail.com : Aminul islam kobi : Aminul islam kobi
  3. anowar183617@gmail.com : Anowar pasha : Anowar pasha
  4. smariful81@gmail.com : ArifulIslam : Ariful Islam
  5. arnobalamin1@gmail.com : arnob alamin : arnob alamin
  6. dms09bd@yahoo.com : dm.shamimsumon : dm shamim sumon
  7. kplithy@gmail.com : Lithy : Khorshida Parvin Lithy
  8. hasankhan0190@gmail.com : md hasanuzzaman : md hasanuzzaman Khan
  9. monirhasantng@gmail.com : MD. MONIR HASAN : MD. MONIR HASAN
  10. muslimuddin@gmail.com : MuslimUddin Ahmed : MuslimUddin Ahmed
  11. sayonsd4@gmail.com : Sahadev Sutradhar Sayon : Sahadev Sutradhar Sayon
  12. sheful05@gmail.com : sheful : Habibullah Sheful
শত বছরের বিদ্যালয় গেইটে শহীদ মুক্তিযোদ্ধার নাম বাদ দিয়ে ব্যক্তি নামে গেইট নির্মাণের অভিযোগ - Amader Tangail 24
বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০:২৫ অপরাহ্ন
সর্বশেষ সংবাদঃ-
সখিপুরে বাবা হত্যার দায়ে অভিযুক্ত ছেলে গ্রেফতার মির্জাপুরে অমর একুশে বই মেলা শুরু বাসাইলে তিন দিন ব্যাপী একুশে বই মেলার উদ্ধোধন পাপ মোচনে বংশাই নদীতে হাজারো পুণ্যার্থীর স্নান ঢাকাস্থ সখিপুর উপজেলা সমিতির মিলনমেলা অনুষ্ঠিত গোপালপুরে ২০১ গম্বুজ মসজিদ চত্বরে পুলিশ বক্স স্থাপন টাঙ্গাইলে শ্রমিক নেতা মোহাম্মদ আলীর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে স্মরণ সভা সখিপুরে জমি বিরোধের জেরে হামলায় আহত ১ মির্জাপুরে পিকআপের চাপায় দাখিল পরীক্ষার্থী নিহত টাঙ্গাইলে পুষ্পস্তবকের ফুল ময়লার ট্রাকে!  টাঙ্গাইলে পাগলা কুকুরের আক্রমণে নারী ও শিশুসহ ১৬ জন আহত ভূঞাপুরে মাদরাসা শিক্ষক হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও স্মারক লিপি প্রদান মির্জাপুরে ট্রাক চালক হত্যার ঘটনায় ৬ জন গ্রেপ্তার ২ জনের স্বীকারোক্তি টাঙ্গাইলে ভাতিজার লাঠির আঘাতে চাচার মৃত্যু মির্জাপুরে পিকআপ-সিএনজির মুখোমুখি সংঘর্ষে নারীসহ ৪ জন নিহত

শত বছরের বিদ্যালয় গেইটে শহীদ মুক্তিযোদ্ধার নাম বাদ দিয়ে ব্যক্তি নামে গেইট নির্মাণের অভিযোগ

জুলিয়া পারভেজ
  • প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১৬ জানুয়ারী, ২০২৪
  • ৫১৭ ভিউ

টাঙ্গাইল জেলার ভূঞাপুর উপজেলার নিকরাইল ইউনিয়নের শত বছরের পলশিয়া রানী দিন মনি উচ্চ বিদ্যালয়ের গেইট নির্মাণে শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের নাম বাদ দিয়ে চাঁন মাহমুদ তালুকদার নামে নামকরণের অভিযোগ উঠেছে। শহীদের নাম না দিয়ে ব্যক্তির নামে গেইট নির্মণের প্রতিবাদ জানিয়েছেন স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা, এলাকাবাসী ও বিদ্যালয়ের প্রাত্তন শিক্ষার্থীরা।

জানা যায়, শত বছরের এ উচ্চ বিদ্যালয়টি ১৯১৮ সালে স্বর্গীয় হেমন্দ্র রায় চৌধুরী তার মায়ের নামকরণে প্রতিষ্ঠা করেন। ইতিহাস ঐতিহ্যের সাক্ষী হয়ে এই বিদ্যালয়ের ৫৭ জন শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেছিলেন মহান মুক্তিযুদ্ধে। দেশ স্বাধীনের সেই যুদ্ধে শহীদ হয়েছিলো এই বিদ্যালয়ের শহীদ নজরুল ও শহীদ আমজাদ নামের দুইজন কিশোর। তাদের অবদান স্বরণীয় রাখতে এবং ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে যুদ্ধের ইতিহাস জানানোর উদ্দেশ্যে গত ২০২১ সালের ১৫ই সেপ্টেম্বর বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক মো. মতিয়ার রহমান ও তৎসময়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির দায়িত্বে থাকা রহিজ উদ্দিন আকন্দের স্বাক্ষরিত একটি আবেদন দেয়া হয়েছিলো স্থানীয় সাংসদ ছোট মনির এমপির কাছে। যাতে এলাকাবাসী ও মুক্তিযোদ্ধাগণ অবগত থাকে। কিন্তু বর্তমান সভাপতি চাঁন মাহমুদ তালুকদার দায়িত্ব পাওয়ার পরেই মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদের ইতিহাস মুছে ফেলার নীল নকশা করেছে বলে মনে করেন প্রাত্তন শিক্ষার্থী, মুক্তিযোদ্ধারা। ধারাবাহিকভাবে প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও ম্যানেজিং কমিটির সদস্যদের দিয়ে রেজুলেশনের মাধ্যমে একটি গেইট নির্মাণ করে মূল ফটকে শহীদের নামের পরিবর্তে নিজ নাম “চাঁন মাহমুদ তালুকদার তোরণ” নির্মাণ করেন। যা দেখে মুক্তিযোদ্ধা, এলাকাবাসী ও প্রাত্তন শিক্ষার্থীরা ক্ষুব্ধ হয়ে প্রতিবাদ জানান। এমন অনিয়মের বিষয়টি বিভিন্ন মহলে জানাজানি হয় এবং গেট নির্মানের কাজ বন্ধ হয়ে যায়।

শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের নাম না দিয়ে নিজের নামে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের নামকরণের অভিযোগের বিষয়টি জানতে বারবার টেলিফোন করলেও চাঁন মাহমুদ তালুকদার ফোন ধরেননি।

প্রতিষ্ঠানরে প্রধান শিক্ষক মো. মতিয়ার রহমানে সাথে কথা বলে জানা যায়, গত ২০২১ সালের ১৫ই সেপ্টেম্বর পলশিয়া রানী দিন মনি উচ্চ বিদ্যালয়ের গেটটি নির্মাণে আমাদের শিক্ষার্থী দুজন শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের নামে নামকরণ করার কথা ছিল। তবে কেন বর্তমান সভাপতির নামে তোরণ নির্মাণ করা হচ্ছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এখন যে তোরণ নির্মাণ হচ্ছে সে সম্পর্কে আমি কিছু জানি না এবং কিছু বলতে পারবো না।

তবে ভূঞাপুর উপজেলার সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুল মজিদ মিয়া তীব্র নিন্দা করে জানান, ১৯৭১ সালে মহান স্বাধীনতা সংগ্রামে এই বিদ্যালয় হতে প্রায় অর্ধশত শিক্ষার্থী মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছিল। তাদের মধ্যে দু’জন মুক্তিযোদ্ধা শহীদ হন। এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি ছিল ঐ শহীদদের নামে একটি তোরণ নির্মাণ করার। তবে তোরণ নির্মাণের কাজ শুরু হলেও তোরণটির নামকরণ করা হচ্ছে বিতর্কিত একজন ব্যক্তি চাঁন মাহমুদ তালুকদারের নামে। আমি একজন মুক্তিযোদ্ধা এবং সাবেক উপজেলা কমান্ডার হিসেবে এলাকার জনগণ ও মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। শহীদের নামে নামকরণের জোর দাবি জানিয়ে তিনি আরো বলেন, বিষয়টি মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য অসম্মানজনক বিধায় সংশিষ্ট সকলের নিকট আমারও দাবি তোরণটি শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের নামেই নামকরণ করা হোক।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো. মনিরুজ্জামান বলেন, কয়েকজন মুক্তিযোদ্ধা, এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে গেট নির্মাণের বিষয়টি জেলা প্রশাসক স্যারের কাছে অভিযোগ করেছেন একটা কপি উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছেও পাঠিয়েছেন ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য এই বিষয়ে, উনি আমাকে বলেছেন ব্যবস্থা নেয়ার জন্য। আমার সাথে প্রধান শিক্ষক ও ম্যানেজিং কমিটির লোকদের কথা হয়েছে বিষয়টি আমি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা স্যারকে অবগত করবো।এলাকার অনেকে মনে করেন যে, স্কুলের প্রধান শিক্ষক এর কারসাজিতে শহীদদের নাম চিরতরে মুছে ফেলার নীল নকশার অংশ।

নিউজটি সোস্যালমিডিয়াতে শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ
© All rights reserved © 2021
Theme Customized BY LatestNews