1. admin@amadertangail24.com : md Hasanuzzaman khan : The Bengali Online Newspaper in Tangail News Tangail
  2. aminulislamkobi95@gmail.com : Aminul islam kobi : Aminul islam kobi
  3. anowar183617@gmail.com : Anowar pasha : Anowar pasha
  4. smariful81@gmail.com : ArifulIslam : Ariful Islam
  5. arnobalamin1@gmail.com : arnob alamin : arnob alamin
  6. dms09bd@yahoo.com : dm.shamimsumon : dm shamim sumon
  7. kplithy@gmail.com : Lithy : Khorshida Parvin Lithy
  8. hasankhan0190@gmail.com : md hasanuzzaman : md hasanuzzaman Khan
  9. monirhasantng@gmail.com : MD. MONIR HASAN : MD. MONIR HASAN
  10. muslimuddin@gmail.com : MuslimUddin Ahmed : MuslimUddin Ahmed
  11. sayonsd4@gmail.com : Sahadev Sutradhar Sayon : Sahadev Sutradhar Sayon
  12. sheful05@gmail.com : sheful : Habibullah Sheful
টাঙ্গাইলে ৯ উপজেলায় বন্যা, পানিবন্দি দেড়লক্ষাধিক মানুষ - Amader Tangail 24
মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ১১:১৬ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ সংবাদঃ-
দেলদুয়ারে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ, অপসারণ দাবিতে মানববন্ধন গোপালপুরে আগুনে পুড়ল ১১টি ঘর ও ৪টি গরু ঘাটাইলে এতিমের জমি দখল করে বিক্রি! বাসাইলে চুরি, মাদক ও ইভটিজিং এর বিরুদ্ধে মতবিনিময় সভা বাসাইল পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে বার্ষিক সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত স্বাধীনতার ইশতেহার পাঠক শাজাহান সিরাজের ৮১ তম জন্মবার্ষিকী পালন মির্জাপুরে কিশোর দলের পাল্টাপাল্টি হামলায় তিনজন জখম সখিপুরে জাতীয় বিমা দিবস উপলক্ষে র‍্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত সখিপুরে বাবা হত্যার দায়ে অভিযুক্ত ছেলে গ্রেফতার মির্জাপুরে অমর একুশে বই মেলা শুরু বাসাইলে তিন দিন ব্যাপী একুশে বই মেলার উদ্ধোধন পাপ মোচনে বংশাই নদীতে হাজারো পুণ্যার্থীর স্নান ঢাকাস্থ সখিপুর উপজেলা সমিতির মিলনমেলা অনুষ্ঠিত গোপালপুরে ২০১ গম্বুজ মসজিদ চত্বরে পুলিশ বক্স স্থাপন টাঙ্গাইলে শ্রমিক নেতা মোহাম্মদ আলীর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে স্মরণ সভা

টাঙ্গাইলে ৯ উপজেলায় বন্যা, পানিবন্দি দেড়লক্ষাধিক মানুষ

নিউজ ডেস্ক
  • প্রকাশ : বুধবার, ২২ জুলাই, ২০২০
  • ২৫৭ ভিউ

টাঙ্গাইলে যমুনা, ঝিনাই, বংশাই নদীর পানি সামান্য কমলেও বংশাইসহ অন্যান্য নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। এতে ৪ নদীর পানি বিপদসীমার উপরে রয়েছে।

তবে জেলার সার্বিক বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তীত রয়েছে। জেলার ৯টি উপজেলা বন্যা কবলিত হয়ে পড়েছে। নদী তীরবর্তী চরাঞ্চলের গ্রামগুলো নতুন করে প্লাবিত হচ্ছে।

নতুন নতুন রাস্তা ঘাট ও ব্রিজ পানিতে ভেঙে যাচ্ছে। জেলার নিচু অঞ্চল ও চরাঞ্চলের অনেক গ্রামের ঘড়-বাড়ি, ফসলি জমি বন্যার পানিতে তলিয়ে আছে। বন্যা দুর্গত এলাকায় বিশুদ্ধ পানির সংকট দেখা দিয়েছে। ত্রাণ সহায়তাও পাচ্ছে না অনেকেই।

বন্যায় জেলায় এখন পর্যন্ত দুই লক্ষাধিক মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। হুমকির মুখে রয়েছে বিভিন্ন এলাকার রক্ষাবাধ। জেলায় দেড়লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দি অবস্থায় রয়েছে। আর দ্বিতীয় দফার বন্যায় ৬ হাজার ১৬৪ হেক্টর ফসলি জমি নিমজ্জিত হয়েছে।

জেলার পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্র জানায়, বুধবার সকালে ধলেশ্বরী নদীর পানি ৭ সে.মি. কমে বিপদসীমার ১৪৬ সে.মি., যমুনা নদীর পানি ৩ সে.মি. কমে বিপদসীমার ৬৪ সে.মি. এবং ঝিনাই নদীর পানি ৬ সে.মি. কমে বিপদসীমার ৭৩ সে.মি. উপরে প্রবাহিত হচ্ছে। এছাড়া বংশাই নদীর পানি ১৫ সে.মি. বৃদ্ধি পেয়ে ৫০ সে.মি. উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

জেলা প্রশাসনের জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন অফিস সূত্র জানায়, জেলায় এখন পর্যন্ত (মঙ্গলবার পর্যন্ত) টাঙ্গাইল সদর, নাগরপুর, দেলদুয়ার, ভূঞাপুর, কালিহাতী, ধনবাড়ী, গোপালপুর, বাসাইল এবং মির্জাপুর উপজেলায় নিমাঞ্চল এবং চরাঞ্চলের অনেক এলাকা প্লাবিত হয়েছে।

নয় উপজেলার ৪৭ টি ইউনিয়নের অন্তত ৪১৩ টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। অপরদিকে ৪টি পৌরসভা আংশিক এলাকা প্লাবিত হয়েছে। এদিকে বন্যার পানিতে ডুবে কালিহাতী এবং নাগরপুরে ২ শিশুর মৃত্যু হয়েছে।

বন্যায় ২ লাখ ৩৩ হাজার ৭৩১ জন মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। পানিবন্দি পরিবারের সংখ্যা ৩৮ হাজার ৪৭৮টি। আর পানিবন্দি লোক সংখ্যা ১ লাখ ৫৩ হাজার ৯১২ জন।

অপরদিকে ৭৩৭টি ঘরবাড়ি সম্পূর্ণ নদীতে বিলীন হয়ে গেছে এবং আরো আংশিক ১১ হাজার ৫১২ টি ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

এছাড়াও নাগরপুরে ১টি স্কুল নদীর গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। আংশিক আরো ৫৩ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

এছাড়া নদীভাঙনে ১ টি ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান সম্পূর্ণ ক্ষতিগ্রস্ত এবং আংশিক ৩১ টি প্রতিষ্ঠান ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এই ৯ উপজেলার ৪৪৭ বর্গ কিলোমিটার এলাকা প্লাবিত হয়েছে।

সূত্র আরো জানায়, জেলায় এখন পর্যন্ত ২ কি.মি. সম্পূর্ণ কাচা রাস্তা এবং আংশিক ৩১৪ কি.মি. কাঁচা রাস্তা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। অপরদিকে ৭১ কি.মি. পাকা রাস্তা আংশিক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এছাড়াও সম্পূর্ণ ৫টি ব্রিজ এবং আংশিক ৪৩টি ব্রিজ ক্ষতি হয়েছে।

অন্যদিকে টিউওবেল ১৪১ টি এবং ২.৫ কি.মি. আংশিক নদীর বাঁধ ক্ষতি হয়েছে। এছাড়া জেলায় ৪০০ মে.ট্রন জির চাল, নগদ ১৩ লাখ টাকা বরাদ্দ পাওয়া গেছে। অপরদিকে শিশু খাদ্য ২ লাখ টাকা এবং গোখাদ্য ২ লাখ টাকা এবং শুকনা প্যাকেট ৬ হাজার বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এগুলো বিতরণ কার্যক্রম অব্যহত রয়েছে।

জেলা কৃষি বিভাগ সূত্র জানায়, প্রথম দফায় বন্যায় টাঙ্গাইলে ৩ হাজার ৮৩৯ হেক্টর ফসলী জমি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। আর এতে ক্ষতিগ্রস্ত হয় ২৭ হাজার ২৩৩ জন। আর দ্বিতীয় দফায় বন্যায় এখন পর্যন্ত (মঙ্গলবার) ৬ হাজার ১৬৪ হেক্টর ফসলি জমি নিমজ্জিত হয়েছে। এর মধ্যে বোনা আমন, রোপা আমন (বীজতলা), আউশ, সবজি, তিল রয়েছে।

টাঙ্গাইলের পানি উন্নয়ন বোর্ডের বিজ্ঞান শাখার উপ-সহকারী প্রকৌশলী রেজাউল করিম বলেন, কিছু কিছু নদীর পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে, আবার কিছু নদীর পানি কমছে।

তবে বর্তমানের বৃষ্টির কারণে নদীগুলোতে আবারো পানি বৃদ্ধি পাবে। পানি সরে গেলে নদীভাঙন তীব্র হবে।

নিউজটি সোস্যালমিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ
© All rights reserved © 2021
Theme Customized BY LatestNews