1. admin@amadertangail24.com : md Hasanuzzaman khan : The Bengali Online Newspaper in Tangail News Tangail
  2. aminulislamkobi95@gmail.com : Aminul islam kobi : Aminul islam kobi
  3. anowar183617@gmail.com : Anowar pasha : Anowar pasha
  4. smariful81@gmail.com : ArifulIslam : Ariful Islam
  5. arnobalamin1@gmail.com : arnob alamin : arnob alamin
  6. dms09bd@yahoo.com : dm.shamimsumon : dm shamim sumon
  7. kplithy@gmail.com : Lithy : Khorshida Parvin Lithy
  8. hasankhan0190@gmail.com : md hasanuzzaman : md hasanuzzaman Khan
  9. monirhasantng@gmail.com : MD. MONIR HASAN : MD. MONIR HASAN
  10. muslimuddin@gmail.com : MuslimUddin Ahmed : MuslimUddin Ahmed
  11. sayonsd4@gmail.com : Sahadev Sutradhar Sayon : Sahadev Sutradhar Sayon
  12. sheful05@gmail.com : sheful : Habibullah Sheful
ভারতবর্ষের বিখ্যাত জাদু সম্রাট পি সি সরকার - Amader Tangail 24
শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ০৭:৫০ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ সংবাদঃ-
উল্লাপাড়ায় দারিদ্র্য বিমোচন কল্যাণ সংস্থার উদ্যোগে দুস্থ ও অসহায়দের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ  ঘাটাইল পল্লী উদ্যোক্তা ঋণ বিতরণ  বর্ষাকালীন ব্যাডমিন্টন ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত খুদে খেলোয়াড়দের মাঝে ফুটবল বিতরণ দেলদুয়ারে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে ১জনক’কে কুপিয়ে গুরুতর জখম ভূঞাপুরে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টে ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত গুণি শিক্ষকের ১৫ তম প্রয়াণ দিবস পালন দেলদুয়ারে ভূমিসেবা সপ্তাহের সেবা প্রদান টাঙ্গাইল প্রকৃতি ক্লাবের উদ্যোগে আলোচনা সভা মিরিকপুর গঙ্গাঁচরণ তপশিলী উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি হলেন রফিকুল ইসলাম সংগ্রাম বাসাইলে ৬ জনকে টপকিয়ে প্রথমবারেই ভাইস চেয়ারম্যান পদে বাজিমাত করলেন নতুন মুখ সাংবাদিক শহিদ চেক জালিয়াতি মামলায় উল্লাপাড়া মোমেনা আলী বিজ্ঞান স্কুলের  প্রধান শিক্ষক মজিদ গ্রেপ্তার  নাগরপুরে কোরবানি ঈদ সামনে রেখে ব্যস্ত কামার শিল্পীরা ভূঞাপুরে প্রভাতি কিন্ডারগার্টেনের পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত কচুরি পানার চাপে ভেঙ্গে পড়লো ঝিনাই নদীর ব্রীজ 

ভারতবর্ষের বিখ্যাত জাদু সম্রাট পি সি সরকার

সহদেব সূত্রধর সায়ন
  • প্রকাশ : সোমবার, ১৩ জুলাই, ২০২০
  • ২৪৮২ ভিউ
জাদু সম্রাট পি সি সরকার

জাদু সম্রাট পি সি সরকার

ভারতবর্ষের বিখ্যাত জাদু সম্রাট পি সি সরকার ১৯১৩ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি বর্তমান বাংলাদেশের (পূর্বে: বেঙ্গল, ব্রিটিশ ভারত) টাঙ্গাইল জেলার অশোকপুর গ্রামে একটি দরিদ্র পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পুরোনাম প্রতুল চন্দ্র সরকার।   তিনি টাঙ্গাইলের শিবনাথ উচ্চ বিদ্যালয়ে লেখাপড়া করেন। সেই স্কুলে পড়ার সময় থেকেই জাদুবিদ্যায় তাঁর আগ্রহ ছিল। ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ার সময়ই তিনি জাদু দেখানো শুরু করেন। তিনি তার জাদুবিদ্যার প্রাথমিক ধারণা নেন খ্যাতিমান জাদুকর  গণপতি চক্রবর্তীর কাছ থেকে। তার জাদু ১৯৩০ সালের দিকে জনপ্রিয় হওয়া শুরু হয়। তিনি ১৯৩৩ সালে তিনি গণিত শাস্ত্রে অনার্স পাশ করে জাদুকেই পেশা হিসেবে নিয়েছিলেন। তিনি কলকাতা, জাপান এবং আরো অনেক দেশেই জাদু দেখিয়েছেন। তিনি অন্যতম একজন আন্তর্জাতিক জাদুকর ছিলেন, তিনি “জাদু সম্রাট পি.সি সরকার” নামে পরিচিত লাভ করেন।  যিনি ১৯৫০ থেকে ১৯৬০ সাল পর্যন্ত তার জাদু দেখিয়েছেন। তার অন্যতম প্রদর্শনী ছিল ইন্দ্রজাল প্রদর্শনী। এই প্রদর্শনী তিনি প্রথমে মঞ্চে ও তারপর টেলিভিশনে দেখিয়েছিলেন।

পরিবার

জাদু সম্রাট পি.সি সরকারের বাবা ভগবান বন্দ্র সরকার এবং মা কুসুম কামিনী দেবী। দুই ভাইয়ের মধ্যে পি সি সরকার ছিলেন বড়। তাঁর ছোট ভাই অতুল চন্দ্র সরকার। প্রতুলচন্দ্র সরকার কলকাতার বাসন্তী দেবীকে ( মৃত্যু: ২৬ ডিসেম্বর ২০০৯, কলকাতা) বিয়ে করেন। তার তিন ছেলে, মানিক সরকার, পি সি সরকার জুনিয়র ও পি.সি.সরকার ইয়ং
১৯৭০ সালের ডিসেম্বরে চিকিৎসক তাঁকে অতিরিক্ত ভ্রমণ না পরামর্শ দিয়েছিলেন। কিন্তু চিকিৎসকের পরামর্শ উপেক্ষা করে জাপান গিয়েছিলেন শো করতে । জাদু সম্রাট পি.সি সরকার ১৯৭১ সালের ৬ই জানুয়ারি (৫৭বয়সে) জাপানে অনুষ্ঠান মঞ্চেই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান।

পি সি সরকারের যে জাদু আতংকিত করেছিল ব্রিটিশদের

হঠাৎ শত শত দর্শকের টেলিফোনে বিবিসি’র স্যুইচবোর্ড কেঁপে উঠেছিল। সময়টা ছিল ১৯৫৬ সালের ৯ই এপ্রিল রাত সোয়া নয়টা।
যুক্তরাজ্যের এই দর্শকরা মনে করেছিলেন, তখনই তারা তাদের টেলিভিশনের পর্দায় ভয়াবহ খুনের ঘটনা সরাসরি দেখলেন। তারা ভড়কে গিয়েছিলেন। আতংকিত হয়ে তারা টেলিফোন করছিলেন বিবিসিতে।

ইন্দ্রজাল শো নামে পরিচিত এই জাদু পি সি সরকার ১৯৫৫সালে প্যারিসে প্রদর্শন করছেন

ঘটনাটি ছিল, কসাইখানায় যেভাবে মাংস কাটা হয়, সে রকম একটি টেবিলে রাখা হয়েছে সতেরো বছর বয়সী এক তরুণীকে। আর রহস্যময় চেহারার এক জাদুকর টেবিলের উপর ঐ তরুণীর শরীর ধারালো ব্লেড দিয়ে দ্বিখন্ডিত করে মাংস কাটছেন। এই পরিস্থিতি এমন একটা উত্তেজনা তৈরি করেছিল যে, কিছু একটা ভুল হয়েছে বলে মনে করেছিলেন অনুষ্ঠানের সাথে সম্পৃক্তরা। কারণ জাদুকর এবং তার সহকারী ঐ তরুণীকে পুনরুজ্জীবিত করার চেষ্টা করছিলেন। কিন্তু কোনো সাড়া পাওয়া যাচ্ছিল না। তরুনীর শরীর দ্বিখন্ডিত রেখেই জাদুকর তার মুখ এবং মাথা কালো কাপড় দিয়ে ঢেকে দেন। তখন উপস্থাপক রিচার্ড ডিম্বলবি ক্যামেরার সামনে এসে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করেছিলেন।

এর ফলাফল যা দাঁড়িয়েছিল, তা হলো আতংকিত দর্শকদের টেলিফোনের ঝড় উঠেছিল। বিবিসি’ প্যানোরমা এই অনুষ্ঠানটি করেছিল। আর শ্বাসরুদ্ধকর সেই জাদু দেখাচ্ছিলেন ভারতের জাদুসম্রাট পি সি সরকার। পশ্চিমাদের কাছে এই অনুষ্ঠানকে পি সি সরকারের জন্য একটা অভ্যূত্থান বলা যায়। কারণ সে সময় লন্ডনের ডিউক অব ইয়র্ক থিয়েটার তিন সপ্তাহের জন্য ভাড়া নেয়া হয়েছিল পি সি সরকারের জাদু প্রদর্শনের জন্য। প্রথমে দর্শক পেতে তাঁকে সংগ্রাম করতে হয়েছিল। কিন্তু প্যানোরমার অনুষ্ঠানটি আলোড়ন সৃষ্টি করলে সেটি তাঁর জন্য একটা বড় সুযোগ তৈরি করে দেয়। তিনিও সেই সুযোগ কাজে লাগিয়েছেন।

পি সি সরকারের ইন্দ্রোজাল শো

আকস্মিকভাবে উপস্থাপক যে মাঝপথে অনুষ্ঠান শেষ করে দিয়েছিলেন, সে ব্যাপারে অনুষ্ঠান কর্তৃপক্ষের আনুষ্ঠানিক ব্যাখ্যায় বলা হয়েছিল যে, বরাদ্দ করা বা নির্ধারিত সময়ের মধ্যে মি: সরকার তাঁর জাদু শেষ করতে পারেননি। তাঁর জাদু অতিরিক্ত সময়ে চলে যাচ্ছিল। এই যুক্তি দিয়ে কর্তৃপক্ষ বলেছিল, পরিস্থিতির কারণে ধারালো ব্লেড দিয়ে তরুনীর শরীর দ্বিখন্ডিত করার বিষয়টি সেভাবেই রেখে অনুষ্ঠান শেষ করা হয়েছিল। পরদিন লন্ডনে সংবাদপত্রে প্রথম পৃষ্ঠায় খবর হয়েছিল যে, টিভি পর্দায় মর্মাহত করার মতো একজন তরুণীকে দ্বিখন্ডিত করার ঘটনা দেখানো হয়েছে। কিন্তু পি সি সরকারকে যারা চিনতেন, তারা জানতেন যে, তিনি সময় মেনে চলতেন। নির্ধারিত সময়ের বাইরে তিনি কোনভাবে যেতেন না। তবে প্যানোরমা সেই অনুষ্ঠানের পর লন্ডনে পি সি সরকারের তিন সপ্তাহের শো’র সব টিকেট বিক্রি হয়ে গিয়েছিল।

পি সি সরকার বিশ্বে জনপ্রিয়তা পেলেন কিভাবে?

ভারত বা দক্ষিণ এশিয়া থেকে গিয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে জায়গা করা বেশ কঠিন ছিল। পি সি সরকার অবস্থান করতে পেরেছিলেন তাঁর কাজের মাধ্যমে। ব্রিটেনে জনপ্র্রিয়তা পাওয়ার অনেক আগে তিনি যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন দেশে অবস্থান করেছিলেন। ১৯৫০ সালে তিনি আমেরিকান জাদুকর সোসাইটি এবং জাদুকরদের আন্তর্জাতিক সংগঠনের আমন্ত্রণে শিকাগো গিয়েছিলেন জাদু দেখাতে। তখন থেকেই তিনি যুক্তরাষ্ট্রে জনপ্রিয় হয়েছিলেন।

পি সি সরকারের আরেকটি জনপ্রিয় জাদু ওয়াটার অব ইন্ডিয়া

ওয়াটার অব ইন্ডিয়া ছিল তাঁর একটি জনপ্রিয় জাদু খেলা।
এছাড়া তাঁর আরেকটি জনপ্রিয় জাদু ছিল, একটি দ্রুতগামী ট্রেন আসার ৩৮ সেকেন্ড আগে তিনি হাতকড়া খুলে রেললাইন থেকে মুক্ত হয়ে আসেন। ১৭টি চাবি ব্যবহার করে হাতকড়া বন্ধ করে তাঁকে রেললাইনে রাখা হতো ট্রেন আসার আগে। এ ধরণের অনেক জাদু নিয়ে তিনি ৭০টির বেশি দেশে শো করেছেন। ১৯৭০ সালের ডিসেম্বরে চিকিৎসক তাঁকে অতিরিক্ত ভ্রমণ না পরামর্শ দিয়েছিলেন। কিন্তু চিকিৎসকের পরামর্শ উপেক্ষা করে জাপানগিয়েছিলেন শো করতে।

পুরস্কার

  •  ভারত সরকার “জাদু সম্রাট পি.সি সরকার” নামে কলকাতাতে একটি সড়কের নামকরণ করেছে।
  •  ১৯৬৪ সালে ভারত সরকার তাকে পদ্মশ্রী সম্মানে ভূষিত করে।
  •  ১৯৪৬ ও ১৯৫৪ সালে জাদুর অস্কার নামে পরিচিত “দ্য ফিনিক্স” (আমেরিকা) পুরস্কার লাভ করেন।
  •  জার্মান মেজিক সার্কেল থেকে “দ্য রয়াল মেডিলিয়ন” পুরস্কার পান।
  •  ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১০ সালে ভারতীয় সরকার তার প্রতি সম্মান জানিয়ে একটি ৫ টাকার স্ট্যাম্প চালু করে।

তথ্যঃ উইকিপিডিয়া ও বিবিসি

 

নিউজটি সোস্যালমিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ
© All rights reserved © 2021
Theme Customized BY LatestNews